You are currently viewing রাজশাহীতে করোনায় ক্ষতিগ্রস্থ ৫০০ পরিবার পেলো খাদ্য সহায়তা

রাজশাহীতে করোনায় ক্ষতিগ্রস্থ ৫০০ পরিবার পেলো খাদ্য সহায়তা

  • Post author:
  • Post category:News

রাজশাহী মহানগরীতে করোনায় ক্ষতিগ্রস্থ গরীব, অসহায়, ছিন্নমুল, হতদরিদ্র, দিনমজুর ও কর্ম হারানো ৫০০ পরিবারের মাঝে খাদ্য ও স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে। রবিবার দুপুরে নগর ভবনে রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের আয়োজনে গ্রাম উন্নয়ন কর্ম (গাক) ও পূবালী ব্যাংক লিমিটেডের যৌথ উদ্যোগে এই খাদ্য ও স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রী বিতরণ করা হয়। রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মেয়র এ.এইচ.এম খায়রুজ্জামান লিটন প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বিতরণ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে মেয়র বলেন, করোনায় উদ্ভুত পরিস্থিতিতে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সহায়তায় রাজশাহীতে দফায় দফায় মানুষকে খাদ্য সহায়তা প্রদান করা হয়েছে। ত্রাণ তহবিল গঠন করে ব্যক্তিগতভাবেও খাদ্য সহায়তা প্রদান করেছি। খাদ্য সহায়তা প্রদান কার্যক্রম চলমান আছে। করোনার এই দুঃসময়ে সবাইকে মানুষের পাশে দাঁড়াতে হবে। সুনামধন্য প্রতিষ্ঠান গ্রাম উন্নয়ন কর্ম (গাক) এর পক্ষ থেকে রাজশাহীতে খাদ্য ও স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রী প্রদানের যে উদ্যোগ নেয়া হয়েছে, তা প্রশংসনীয়। সরকারি সহায়তার পাশাপাশি এভাবেই বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান/ সংস্থা ও সমাজের বিত্তবান মানুষেরা এগিয়ে আসলে গরীব, অসহায়, ছিন্নমুল, হতদরিদ্র, দিনমজুর ও কর্ম হারানো মানুষের খাদ্য সংকট থাকবে না।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য দেন গাক এর প্রতিষ্ঠাতা ও নির্বাহী পরিচালক ড. খন্দকার আলমগীর হোসেন এবং পূবালী ব্যাংক লিমিটেডের উপ-মহাব্যবস্থাপক ও রাজশাহী অঞ্চল প্রধান আবু লাইছ মো. শামসুজ্জামান।গাক এর প্রতিষ্ঠাতা ও নির্বাহী পরিচালক ড. খন্দকার আলমগীর হোসেন বলেন, করোনাকালীন সময়ে এই খাদ্য সহায়তা গরীব মানুষের জীবন চালাতে সহায়ক হবে। আগামীতেও সহায়তা প্রদান অব্যাহত থাকবে। এ সময় তিনি সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা ও মাস্ক ব্যবহারে উৎসাহিত করেন।

এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন গাক এর উপদেষ্টা মন্ডলীর সদস্য রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেসর ড. মোঃ সাইদুজ্জামান ও প্রফেসর ড. মোঃ মোস্তাফিজুর রহমান, সিনিয়র পরিচালক ড. মোঃ মাহবুব আলম, পরিচালক (অভ্যন্তরীণ নিরীক্ষা) মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন, সমন্বয়কারী (কমিউনিকেশন এন্ড ডকুমেন্টেশন) সরদার জিয়া উদ্দিন।উল্লেখ্য, ৫০০টি পরিবারের জন্য প্রদানকৃত খাদ্য ও স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রীর প্রতিটি প্যাকেটে আছে ৩০ কেজি চাল, ১০ কেজি আলু, তেল ২ কেজি, ২ কেজি লবন, ২ কেজি ডাল, ১০টি মাস্ক, ৫ ওর স্যালাইন, ১ পাতা প্যারাসিটামল, ২টি লন্ড্রি সাবান ও ২টি গোসলের সাবান।

This Post Has 50 Comments

  1. Pingback: kin

  2. Pingback: jz

  3. Pingback: nlp

  4. Pingback: 7

  5. Pingback: 777

Comments are closed.